আসাম- বিহার ভিন রাজ্য থেকে ভোটে প্রার্থীদের হয়ে টাকা ছড়ানোর সম্ভাবনা! ইলেকশন এক্সপেন্ডিচার মনিটরিং উইংকে বিশেষ প্রশিক্ষণ দিয়ে কড়া নজরদারি নির্দেশ। পুলিশের আইসি,ওসি থেকে এসিপি,ডিএসপি ও উচ্চ পদস্থ পুলিশ কর্তাদেরও নির্বাচনী প্রশিক্ষনে সতর্কতা আরোপ।
প্রার্থীদের নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় ব্যয় বৃদ্ধির ঘোষণার সম্ভবনা! নির্বাচন প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ বাবদ ব্যয় বৃদ্ধি হয়ে পৌঁছছে ৯৫ লক্ষ টাকায়। ভাজপা প্রার্থীদের সুবিধে প্রদানেই প্রায় ২০-২৫লক্ষ টাকা খরচে ছাড় মন্তব্য রাজনৈতিক মহলের!

শিলিগুড়ি। আসাম- বিহার ভিন রাজ্য থেকে ভোটে প্রার্থীদের হয়ে টাকা ছড়ানোর সম্ভাবনা! ইলেকশন এক্সপেন্ডিচার মনিটরিং উইংকে বিশেষ প্রশিক্ষণ দিয়ে কড়া নজরদারি নির্দেশ। পুলিশের আইসি,ওসি থেকে এসিপি,ডিএসপি ও উচ্চ পদস্থ পুলিশ কর্তাদেরও নির্বাচনী প্রশিক্ষনে সতর্কতা আরোপ।যেকোনো মুহূর্তে জাতীয় নির্বাচন কমিশনের তরফে প্রকাশিত হতে পারে নির্বাচনী নির্ঘণ্ট। নির্বাচনী দামামা বাজতেই কড়া নজরদারি আরোপের সতর্কতা। ভিন রাজ্য থেকে হাওলাইয়ের মাধ্যমে লোকসভা ভোটের মুখে বাংলায় টাকা ছড়ানোর খবর রয়েছে রাজ্য গোয়েন্দা বিভাগের কাছে। রাজ্য গোয়েন্দা সূত্রের খবর সেমত নাকা তল্লাশি থেকে নজরদারিতে পুলিশকে হাই এলার্ট জারি করা হয়েছে। লোকসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে শিলিগুড়ি দীনবন্ধু মঞ্চে দুই দিনব্যাপী বিশেষ প্রশিক্ষন চলে। জেলা প্রশাসনের তরফে চলে শনিবার ও রবিবার এই বিশেষ প্রশিক্ষণ। জানা গিয়েছে শনিবার পুলিশ কর্তাদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।
জেলা প্রশাসনের তরফে এই প্রশিক্ষণ শিবিরে প্রতিটি থানার আইসি ওসি এবং ডিএসপিদের লোকসভা নির্বাচনকে নজরে রেখে বিশেষ গাইডলাইন দেওয়া হয়েছে। দ্বিতীয় দিনে শিলিগুড়ি চার ব্লক ও শিলিগুড়ি শহরের ইলেকশন এক্সপেন্দেচার মনিটরিং উইয়িং-এর অফিসারেদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে এই প্রশিক্ষণের মাধ্যমে পুলিশ এবং ইলেকশনের মনিটরিং টিম এর মধ্যে সমন্বয়ে বজায় রেখে কাজের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পুলিশ ও আফগারি দপ্তরের নোডল অফিসারেরা ছিলেন মনিটরিং টিম এর অফিসারদের সঙ্গে দ্বিতীয় দিনের প্রশিক্ষণ শিবিরে। জানা গিয়েছে, নির্বাচনী ব্যয়, অর্থ ও বেযআইনি ভাবে মদ, পুরো নির্বাচনী বিধি-নিষেধের ওপর শহর জুড়ে নজরদারি চালাবে এই টিম। এই দুই দিনের শিবিরে চার ব্লকের বিডিও-রাও উপস্থিত ছিলেন। জানা গিয়েছে স্ট্যাটেসটিক্স টিম, একাউন্টিং টিম, ভিডিও ভিউইং গ্রূপ সহ বিভক্ত একাধিক টিম নজরদারি চালাবে।এবারে জাতীয় নির্বাচন কমিশনের তরফে প্রার্থীদের ভোটে অংশগ্রহণ বাবদ ব্যয়ের পরিমাণ বৃদ্ধির সম্ভাবনা খবর রয়েছে। এবারে প্রার্থীরা মাথাপিছু নিজ নির্বাচনী ক্ষেত্রে প্রচারের ৯৫ লক্ষ টাকা ব্যয় করতে পারবে। যা আগে ৭০-৮০লক্ষের মধ্যে ছিল। এবারে তা বাড়ানো হয়েছে। পাশাপাশি অন্যান্য নির্দেশিকা গুলি একইভাবে বহাল রয়েছে। নির্বাচনী নির্ঘণ্ট ও প্রকাশের পর পঞ্চাশ হাজার টাকা নগদ নিয়ে ঘোরাফেরা করা যাবে না তার জন্য যথোপযুক্ত নথি রাখতে হবে যে কোন ব্যক্তিকে। ১২ লিটারের বেশি বৈদেশিক মদে নিষেধাজ্ঞা জারি থাকছে। একইভাবে প্রকাশ্যে বেশি পরিমাণে মদ এবং মাদক সামনে এলেও নির্বাচনী বিধি নিষেধ লঙ্ঘনের দায়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারে কমিশন।

সম্প্রতি শিলিগুড়িতে লোকসভা ভোটের মুখে বিএসএফের চোখের আড়ালে কোচবিহার ভারত বাংলাদেশ সীমান্ত হয়ে ৭২লক্ষ টাকার সোনাপাচার ঘটনা সামনে আসে। বাজেয়াপ্ত করেছে বিপুল পরিমাণে বৈদশিক সোনার বিস্কুট। এর পেছনে উত্তর-পূর্ব ভারতের আন্তর্জাতিক চক্রের হাত রয়েছে যা বাংলাতে করিডর করে ভিন রাজ্য উড়িষ্যায় পাচারের উদ্দেশ্য ছিল। অন্যদিকে বেআইনি চাল লটারি চক্রের পর্দাফাঁস হয়। পুলিশ চারজন কে গ্রেফতার করে। এই জাল লটারি আসাম এবং বিহারের উদ্দেশ্যে যাচ্ছিল। পরপর এই ঘটনাগুলি রাজ্য গোয়েন্দা বিভাগে উদ্বেগ সৃষ্টি করেছে। গোয়েন্দা সূত্রে এলার্ট করা হয়েছে পুলিশকে। এদিকে এই বিষয়ে মাটিগাড়ার বিডিও বিশ্বজিৎ দাস জানান জেলা প্রশাসনের নির্দেশে এই কর্মসূচি চলে। পুলিশ ও প্রশাসনের কর্মীদের সমন্বয়ে কর্মসূচি হয়েছে। নির্বাচনী নির্ঘণ্ট প্রকাশের পর প্রশিক্ষণের সময় মিলবে না তাই আগাম এই কর্মসূচি।

 

You cannot copy content of this page