কাপড়ের বকেয়া আদায় করতে গিয়ে মহিলাকে খুন! অভিযুক্তের বাড়িতে চড়াও হয়ে ভাঙচুর স্থানীয়দের। পরিস্থিতি সামালে লাঠি চার্জ। পুলিশ অভিযুক্ত এক মহিলাকে হেফাজতে নিয়েছে।

জানা গিয়েছে মঙ্গলবার রাতে ওই এলাকার কাপড়ের দোকানের ব্যবসায়ি মহিলা পাপিয়া কর্মকার বকেয়া টাকা আদায়ের জন্য হানা দেয় সবই

মহিলার সঙ্গে কথা কাটাকাটি বাঁধে পাপিয়ার। এরপরই কাপড়ের ব্যবসায়ী কর্মকার পরিবারের আরও দুই যুবক সুজিত কর্মকার এবং শ্যামল কর্মকার মহিলার বাড়িতে গিয়ে হামলা চালায়। স্থানীয়রা জানায় পাপিয়ার সঙ্গে কথা কাটাকাটির পরেই সুজিত শ্যামল মহিলার বাড়িতে রুদ্র মূর্তি ধারণ করে হামলা চালায়। বাড়িতে থাকা একটি কাঠের বাটাম উঠিয়ে শান্তি বর্মনের স্বামীর উপর হামলা চালানোর চেষ্টা করে সুজিত ও শ্যামল। স্বামীকে বাঁচাতে সুজিত শ্যামলকে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করে শান্তি দেবী। এরপরই শান্তি দেবীর মাথায় ওই কাঠের বাটাম দিয়ে আঘাত হানে এই দুই ব্যক্তি। ঘটনাস্থলেই রক্তাক্ত অবস্থায় লুটিয়ে পড়েন শান্তিদেবী। এরপর বাটাম উঠিয়ে শান্তি দেবীর স্বামীর পিছু নেয় সুজিত ও শ্যামল। শান্তি দেবীর স্বামী কোনরকমে লুকিয়ে প্রাণে বাঁচে। এরপরই ঘটনাস্থলে শান্তি দেবী কে রক্তাক্ত অবস্থায় ফেলে পালিয়ে যায় কর্মকার পরিবারের তিন সদস্য। স্থানীয়রা মহিলাকে উদ্ধার করে শিলিগুড়ি জেলা হাসপাতালে নিয়ে এলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে জানিয়ে দেয়। এরপরই উত্তেজিত স্থানীয়রা কর্মকার বাড়িতে ভাঙচুর চালায়।

 

 

You cannot copy content of this page