🔴আজ পাহাড় সফরে মুখ্যমন্ত্রীর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাহাড়ের উন্নয়নে শিল্প সম্মেলন যোগ দিতে চলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

 

শিলিগুড়ি। আজ পাহাড় সফরে মুখ্যমন্ত্রীর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাহাড়ে শিল্প সম্মেলন যোগ দিতে চলেছেন রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান। তিন দিবসীয় সফরে আরও একাধিক কর্মসূচি রয়েছে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর। পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে মুখ্যমন্ত্রীর পাহাড় সফর ঘিরে আশার আলো সঞ্চার হয়েছে পাহাড়ে। জিটিএকে সামনে রেখে পাহাড়বাসীর স্বার্থে মুখ্যমন্ত্রীর আগমন ঘিরে নতুন উপহারের ঝাঁপি খুলতে চলেছে সেদিকেই তাঁকিয়ে রয়েছে পাহাড়বাসি জনগন। কারন রাজ্যের শাসন ক্ষমতায় আসার পর থেকেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাহাড় সফর সর্বদাই বিশেষ তাৎপর্য বহন করে এসেছে। তার প্রতি সফরেই পাহাড়ের মানুষের সমস্যা সমাধান থেকে তাদের চাওয়া পাওয়াকে মাথায় রেখে বড় ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।দার্জিলিংয়ে তার হাত ধরে শান্তি ফেরার পাশাপাশি

উন্নয়নে দৃষ্টি আরোপ করে একাধিক দূরদর্শি পদক্ষেপের বাস্তবায়ন হয়েছে। পাহাড়বাসি জনগণের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন থেকে একাধিক বড় বড় প্ৰকল্প নিয়েছেন। আর তাই এবারেও মুখ্যমন্ত্রীর আগমনের খবর ছড়িয়ে পড়তেই খুশি হাওয়ায় ভাসছে পাহাড়। সোমবার কলকাতা থেকে বিমানে বাগডোগরা বিমানবন্দরে উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন তিনি। বিকেল নাগাদ শিলিগুড়িতে নেমেই সেখান থেকে পাহাড়ের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেবেন রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে এখনও পর্যন্ত ৬ই জুন মঙ্গলবার ঘোষিত কোনো কর্মসূচি নেই মুখ্যমন্ত্রীর। বুধবার ৭ই জুন দার্জিলিং পাহাড়ের কোলে শিল্প সম্মেলন রয়েছে। সেখানে শিল্পপতিদের সঙ্গে সরাসরি পাহাড়ের শিল্পের প্রসারকে কেন্দ্র কর্মসংস্থানের বিপুল সম্ভবনার বিষয়ের ওপরই দৃষ্টিনিক্ষেপ করতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিকে সমস্ত কিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী এক থেকে দেড় মাসের মধ্যেই পাহাড়ে পঞ্চায়েত নির্বাচন হতে চলেছে। তাই ইতিমধ্যেই পঞ্চায়েত নির্বাচনের দোরগোড়ায়  মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আগমনকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক মহলে উন্মাদনা তৈরি হয়েছে। পাহাড়ে রাজনৈতিক সমীকরণ একেবারেই পৃথক। পাহাড় রাজনীতির বিভিন্ন ছোট দলগুলিকে সর্বদাই মর্যাদা দিয়ে এসেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধানের আসার খবরেই নতুন উদ্যম তৈরি হয়েছে পাহাড়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক শিবিরে। মূলত রাজনৈতিক মহলের গুঞ্জন ৬ই জুন পাহাড়ের বিভিন্ন ছোটখাটো রাজনৈতিক দল এবং নেতৃত্বরা মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে পারেন। প্রত্যেকেই নিজ নিজ প্রেক্ষাপট তুলে ধরতে চান রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধানের কাছে। একই সঙ্গে বিগত পাঁচ বছর ধরে লোকসভায় বিজেপি সাংসদের ভূমিকায় ক্ষুদ্ধ পাহাড়বাসির মনোভাব বুঝতে পেরেই  তৃণমূল সুপ্রিমোর উপস্থিতিতে পাহাড়ের রাজনৈতিক দলগুলি নতুন সমীকরন প্রকাশ্যে আসার সম্ভবনাও প্রবল গুঞ্জনে।

আজ পাহাড় সফরে মুখ্যমন্ত্রীর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাহাড়ে শিল্প সম্মেলন যোগ দিতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

শিলিগুড়ি। আজ পাহাড় সফরে মুখ্যমন্ত্রীর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাহাড়ে শিল্প সম্মেলন যোগ দিতে চলেছেন রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান। তিন দিবসীয় সফরে আরও একাধিক কর্মসূচি রয়েছে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর। পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে মুখ্যমন্ত্রীর পাহাড় সফর ঘিরে আশার আলো সঞ্চার হয়েছে পাহাড়ে। জিটিএকে সামনে রেখে পাহাড়বাসীর স্বার্থে মুখ্যমন্ত্রীর আগমন ঘিরে নতুন উপহারের ঝাঁপি খুলতে চলেছে সেদিকেই তাঁকিয়ে রয়েছে পাহাড়বাসি জনগন। কারন রাজ্যের শাসন ক্ষমতায় আসার পর থেকেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাহাড় সফর সর্বদাই বিশেষ তাৎপর্য বহন করে এসেছে। তার প্রতি সফরেই পাহাড়ের মানুষের সমস্যা সমাধান থেকে তাদের চাওয়া পাওয়াকে মাথায় রেখে বড় ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।দার্জিলিংয়ে তার হাত ধরে শান্তি ফেরার পাশাপাশি
উন্নয়নে দৃষ্টি আরোপ করে একাধিক দূরদর্শি পদক্ষেপের বাস্তবায়ন হয়েছে। পাহাড়বাসি জনগণের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন থেকে একাধিক বড় বড় প্ৰকল্প নিয়েছেন। আর তাই এবারেও মুখ্যমন্ত্রীর আগমনের খবর ছড়িয়ে পড়তেই খুশি হাওয়ায় ভাসছে পাহাড়। সোমবার কলকাতা থেকে বিমানে বাগডোগরা বিমানবন্দরে উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন তিনি। বিকেল নাগাদ শিলিগুড়িতে নেমেই সেখান থেকে পাহাড়ের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেবেন রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে এখনও পর্যন্ত ৬ই জুন মঙ্গলবার ঘোষিত কোনো কর্মসূচি নেই মুখ্যমন্ত্রীর। বুধবার ৭ই জুন দার্জিলিং পাহাড়ের কোলে শিল্প সম্মেলন রয়েছে। সেখানে শিল্পপতিদের সঙ্গে সরাসরি পাহাড়ের শিল্পের প্রসারকে কেন্দ্র কর্মসংস্থানের বিপুল সম্ভবনার বিষয়ের ওপরই দৃষ্টিনিক্ষেপ করতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিকে সমস্ত কিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী এক থেকে দেড় মাসের মধ্যেই পাহাড়ে পঞ্চায়েত নির্বাচন হতে চলেছে। তাই ইতিমধ্যেই পঞ্চায়েত নির্বাচনের দোরগোড়ায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আগমনকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক মহলে উন্মাদনা তৈরি হয়েছে। পাহাড়ে রাজনৈতিক সমীকরণ একেবারেই পৃথক। পাহাড় রাজনীতির বিভিন্ন ছোট দলগুলিকে সর্বদাই মর্যাদা দিয়ে এসেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধানের আসার খবরেই নতুন উদ্যম তৈরি হয়েছে পাহাড়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক শিবিরে। মূলত রাজনৈতিক মহলের গুঞ্জন ৬ই জুন পাহাড়ের বিভিন্ন ছোটখাটো রাজনৈতিক দল এবং নেতৃত্বরা মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে পারেন। প্রত্যেকেই নিজ নিজ প্রেক্ষাপট তুলে ধরতে চান রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধানের কাছে। একই সঙ্গে বিগত পাঁচ বছর ধরে লোকসভায় বিজেপি সাংসদের ভূমিকায় ক্ষুদ্ধ পাহাড়বাসির মনোভাব বুঝতে পেরেই তৃণমূল সুপ্রিমোর উপস্থিতিতে পাহাড়ের রাজনৈতিক দলগুলি নতুন সমীকরন প্রকাশ্যে আসার সম্ভবনাও প্রবল গুঞ্জনে।

You cannot copy content of this page