পাঁচ বছরে প্রায় তিন গুন সম্পত্তি বৃদ্ধি ভাজপা সাংসদ রাজু বিস্টের। ২০১৭ সাল থেকে ২০২৪ পর্যন্ত স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তির পরিমান কয়েক গুণ বেড়েছে সাংসদের। নির্বাচনের মুখে যা ঘিরে প্রশ্ন ঘুরছে রাজনৈতিক মহলে!
২০১৭সালের নির্বাচনী হলফনামায় সাংসদের স্থাবর সম্পত্তির অংক ছিল ৭ কোটি ৩৫ লক্ষ ৪১ হাজার ৮১৭ টাকা।আর ২০২৪-এ এর হলফনামায় প্রাক্তন সাংসদ প্রার্থী রাজু উল্লেখ্য করেছেন ২২ কোটি ৩৮ লক্ষ ৮৬ হাজার ৩৭০ টাকা স্থাবর সম্পত্তির অংক। দিল্লি গুরগাঁও সহ শিলিগুড়িতে পাঁচ বছরে নতুন করে তিনটি বিলাসবহুল রেসিডেন্সিয়াল সম্পত্তি।বেড়েছে স্ত্রীর সম্পত্তির পরিমাণও

শিলিগুড়ি। পাঁচ বছরে প্রায় তিন গুন সম্পত্তি বৃদ্ধি ভাজপা সাংসদ রাজু বিস্টের। ২০১৭ সাল থেকে ২০২৪ পর্যন্ত স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তির পরিমান কয়েক গুণ বেড়েছে সাংসদের। নির্বাচনের মুখে যা ঘিরে প্রশ্ন ঘুরছে রাজনৈতিক মহলে! মনোনয়নের সঙ্গে দেওয়া হলফনামা থেকে সামনে এসেছে সাংসদের পাঁচ বছরে বিপুল পরিমাণে সম্পত্তি পরিমাণ বৃদ্ধির বিষয়টি। ২০১৭ সালে প্রার্থীর হলফনামার সঙ্গে স্থাবর সম্পত্তির অংকের বিরাট বৃদ্ধির হিসেব সামনে এসেছে। ২০১৭সালের নির্বাচনী হলপনামায় সাংসদের স্থাবর সম্পত্তির অংক ছিল ৭ কোটি ৩৫ লক্ষ ৪১ হাজার ৮১৭ টাকা।আর ২০২৪-এ এর হলফনামায় প্রাক্তন সাংসদ প্রার্থী রাজু উল্লেখ্য করেছেন ২২ কোটি ৩৮ লক্ষ ৮৬ হাজার ৩৭০ টাকা স্থাবর সম্পত্তির অংক। যাতে পরিষ্কার তার স্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ প্রায় তিন গুণের বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে। সে তালিকায় আছে পাঁচ বছরে দিল্লীর গুরগাঁও এর মতো মেট্রো সিটিতে কয়েক কোটি টাকার অংকের নতুন বিলাসবহুল আবাসন, শিলিগুড়ির মাটিগাড়ার উত্তরায়ন টাউনশিপে আরও কয়েক কোটির বিশাল পল্ট। একাধিক নতুন করে শিল্প ও কৃষি জমিন, সেখানে শিল্পাঞ্চল তৈরীর মধ্য দিয়ে নিজ সম্পত্তি ফুলিয়ে ফাপিয়ে তুলেছেন প্রাক্তণ সাংসদ। বিগত পাঁচ বছরে বেড়েছে সাংসদ স্ত্রীরও সম্পত্তির অংক। পাঁচ বছরের সময়কালেই সন্তানের নামে একটি প্রাইভেট কনসালটেন্সি রয়েছে সাংসদ স্ত্রীর নামে। অস্থাবর সম্পত্তির অংকও বৃদ্ধি পেয়েছে পাঁচ বছরে সংসদ ও সাংসদ স্ত্রীর। জানা যাচ্ছে এর মধ্যে গুরগাঁও মেট্রো শহরের বুকে সেন্ট্রাল পার্ক সেক্টর ৪৮ চত্বরে বিলাসবহুল আবাসন রয়েছে সাংসদের নামে।যা ২০১৯সালে ৩১ শে জানুয়ারি ক্রয় করেছেন তিনি বলে জানিয়েছেন হলফনামায়। রেসিডেন্সিয়াল ইউনিট নাম্বার ২বি-তে এই বিলাসবহুল সম্পত্তির ক্রয়মূল্য হিসেবে ৩ কোটি ৯৯ লক্ষ১৩ হাজার ৪৮৭ টাকার উল্লেখ্য রয়েছে। এছাড়া ২০২০সালে তার পূর্বের ওয়েস্ট পাঞ্জাবি বাগের বাসস্থানের পাশে ১২ আপার গ্রাউন্ড ফ্লোর রোড নাম্বার ৮১তে আরো ৩ কোটি ২১লক্ষ টাকার ৯হাজার ১৩৬টাকার সম্পত্তি রয়েছে সাংসদের নামে।যার তারিখ হিসেবে ২০২০সালের ১৯শে ফেব্রুয়ারি উল্লেখ্য রয়েছে।
এই দুই সম্পত্তি রেসিডেন্সির এলাকায় হিসেবে চিহ্নিত করেছেন প্রাক্তন সাংসদ। এখানেই শেষ নয় মাটিগাড়ার উত্তরায়ন নিউ টাউনশিপে ৫৭১৫ স্কোয়ার ফিট জমির ওপর বিলাস বহুল আবাসন। যার ক্রয় মূল্য ১কোটি ৩৪ লক্ষ ৮৬হাজার। যার বর্তমান বাজার মূল্য হিসেবে উল্লেখ্য ৪কোটি ৩০লক্ষ ৯২হাজার। হলফনামায় প্রাক্তণ সাংসদ প্রার্থী উল্লেখ করেছেন ২০১৮ সালের ২৮শে মে’তে এই সম্পত্তি ক্রয় করেন তিনি। স্ত্রীর স্থাবর সম্পত্তির অংক ২০১৭তে হলফনামায় যেখানে উল্লেখ রয়েছে ৭০ লাখ ৩৭হাজার ১৮৪। সেখানে ২০২৪এর হলফ নামায় স্ত্রীর সম্পত্তির পরিমাণে ৫ কোটি ৪২লক্ষ ৫হাজার ৫৬১টাকার উল্লেখ্য রয়েছে। এদিকে এই পাঁচ বছরে সাংসদ প্রার্থীর অস্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ বেড়েছে কয়েক কোটি টাকা। ২০১৭ সালে অস্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ ছিল ৬কোটি সেখানে ২০২৪এর হলফনামায় সাংসদ ১০কোটি৩৬লক্ষ৪০হাজার১৬৪ টাকার উল্লেখ্য রয়েছে।

You cannot copy content of this page