🔺পুজোয় অরণ্য রাজ্যের রাজা-রানীর পাড়ি শিলিগুড়িতে!পুজোর পর্যটকদের জন্য উপহারের ঝাঁপি খুলতে চলেছে বেঙ্গল সাফারি পার্ক।

শিলিগুড়ি। পুজোয় অরণ্য রাজ্যের রাজা-রানীর পাড়ি শিলিগুড়িতে!পুজোর আগেই পর্যটকদের জন্য উপহারের ঝাঁপি খুলতে চলেছে বেঙ্গল সাফারি পার্ক। সাফারিতে আসছে একটি পুরুষ ও স্ত্রী সিংহ, পুজোর মরশুমেই পর্যটকদের জন্য চালু করা হতে পারে সিংহ সাফারি। বিষহীন অজগর সাপ থেকে পুজোয় সাফারিতে পর্যটকদের দেখা মিলবে নিত্যনতুন বন্যপ্রানের। পায়ে হেঁটে ঘুরে দেখা যাবে ওয়াটার বার্ড অ্যাভিয়রী, সাপের কনস্ট্রিকটর হাউজ। এছাড়াও শিশুদের অন্যতম আকর্ষণের ডিভন ক্লাইমেট প্রস্তুতির কাজ চলছে সাফারি পার্কে। বর্তমানে সাফারি পার্কে সিংহ এনক্লোজার, কাচেঁ মোড়া স্নেক কনস্ট্রিকটর হাউজ ও ওয়াটার বার্ড এভিয়রী নির্মানের কাজ শুরু হয়েছে। শিলিগুড়ির অদূরে শালুগাড়া বন্যপ্রাণ উদ্যানে বেঙ্গল সাফারি পার্কে কোটি টাকা বরাদ্দে নতুন চারটি প্রকল্প এর কাজে লেগে পড়েছে পার্ক কর্তৃপক্ষ। পুজোয় পর্যটকদের সাফারিতে নতুন চারটি জোন উপহার দিতে দ্রুততার সঙ্গে আধুনীক উপযোগী পরিকাঠামো নির্মানের কাজ শেষ করতে চাইছে রাজ্য বন দপ্তর।

সাফারির বন ভূমির ২০হেক্টর এলাকা নিয়ে সিংহের এনক্লোজার তৈরির কাজ চলছে জোর কদমে। সাফারি সূত্রে জানা গিয়েছে ভিন রাজ্য ত্রিপুরা থেকে বেঙ্গল সাফারিতে আসবে সিংহদ্বয়। পার্ক সূত্রের খবর ঠিক হয়েছে ত্রিপুরা সিপাহিজালা চিড়িয়াখানা থেকে একটি পুরুষ ও একটি স্ত্রী সিংহ আনা হবে সাফারিতে। ইতিমধ্যেই দুই রাজ্যের বন দপ্তর ও চিড়িয়াখানা, বন্যপ্রাণ উদ্যান কর্তৃপক্ষের মাঝে সমস্ত রকম আলোচনা ও কথা বার্তাও পাকা হয়ে গিয়েছে। ২০লক্ষ টাকা ব্যয় বরাদ্দে সাফারিতে তৈরি হচ্ছে সিংহের এনক্লোজার। চলতি মাসেই সরেজমিনে কাজ পর্যবেক্ষনে আসার কথা রয়েছে বন মন্ত্রীর।পরিকাঠামো খতিয়ে আগামী সফর থেকেই সাফারিতে সিংহ আগমন থেকে লায়ন সাফারি চালুর বিষয়ে দিনক্ষণ ঘোষণা করতে পারেন রাজ্যের বন মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে রয়্যাল বেঙ্গল সাফারির পাশাপাশি এবারে পুজোর সময়তে সিংহ সাফারি উপভোগ করতে পারবেন পর্যটকেরা। আর তা হলে উত্তরবঙ্গে প্রথম কোনো চিড়িয়াখানা ও উন্মুক্ত সাফারিতে সিংহের দর্শন মিলবে পর্যটকদের। এছাড়া ইতিমধ্যেই দ্বিতীয় বড় প্ৰকল্প সাপের স্নেক কনস্ট্রিকটর হাউজ তৈরির কাজ প্রায় শেষের মুখে।

এখানে সম্পূর্ণ কাচেঁ মোড়া সেলে থাকবে বিষহীন প্রজাতির পেল্লায় অজগর। বেঙ্গল সাফারি কর্তৃপক্ষের তরফে জানা গিয়েছে আলিপুরদুয়ার থেকে প্রায় ১৬-১৭ ফিট দৈর্ঘ্যের বিরল প্রজাতির বিষমুক্ত সাপ নিয়ে আসা হবে। সেজন্য সাফারিতে ৮০ স্কোয়ার ফিটের কাচেঁ মোড়া চারটি সেল তৈরি করা হচ্ছে। যার কাজ শেষের দিকে।সাফারি সূত্রে জানা গিয়েছে আলিপুরদুয়ার থেকে আনা হবে গ্রীন অ্যানাকোন্ডা( দৈত্য পান্না এনাকোন্ডা), রক পাইথন(শঙ্খচূড়/শিলা অজগর),রেটিকুলেটেড পাইথন (জালিকার অজগর),বল পাইথন (রাজকীয় অজগর)। এদিকে পর্যটকদের কাছে আকর্ষনীয় হয়ে উঠবে লার্জ ওয়াটার বার্ড অ্যাভিয়রী এককথায় মনোরম পক্ষীশালা।সেখানে জলকেলি থেকে নিজস্ব ছন্দে দেখা মিলবে হরেক রকম দেশি বিদেশি পাখিদের।
বেঙ্গল সাফারির ডিরেক্টর কমল সরকার বলেন লার্জ ওয়াটার বার্ড অ্যাভিয়রীতে ওয়াকিং জোন থাকবে। পায়ে হেঁটে পাখিদের সঙ্গে মনোরম পরিবেশ উপভোগ করতে পারবে পর্যটকেরা।তিনি জানান সাফারিতেচারটি বড় প্রকল্পের পরিকাঠামোগত কাজ চলছে। বন মন্ত্রীর নির্দেশ মতোই সিংহ এনক্লোজার তৈরি করা হয়েছে। যা আধুনীক পরিকাঠামো সম্পন্ন। কনস্ট্রিকটর হাউজের কাজ শেষের দিকে। ডিরেক্টরের কথায় নতুন রূপে সেজে উঠছে উত্তরবঙ্গ বন্যপ্রাণ উদ্যান সাফারি, পর্যটকদের জন্য বেশ কিছু চমক আসতে চলেছে।

You cannot copy content of this page