🔻হোডিংমুক্ত শিলিগুড়ি গড়তে অঙ্গীকারবদ্ধ পুরনিগমের তৃনমূল বোর্ড। হোডিং লাগাতে হলে লাগবে পুরনিগমের অনুমোদন।কর বকেয়া রেখে বেআইনী হোডিংয়ের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপের গ্রহণ, ব্যক্তি সংস্থার হোডিংয়ে পুরনিগমের প্রতীক চিহ্ন (লোগো) না থাকলে বেআইনি কাজের জন্য নেওয়া হবে কড়া ব্যবস্থা। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে জুলাইয়ে ৩০টি সুস্বাস্থ্য কেন্দ্রের চালুর টার্গেট। প্রয়োজনে ভাড়ায় ভবনে নিয়ে চালু হবে সুস্বাস্থ্য কেন্দ্র

 

শিলিগুড়ি। হোডিংমুক্ত শিলিগুড়ি গড়তে অঙ্গীকারবদ্ধ পুরনিগমের তৃনমূল বোর্ড। হোডিং লাগাতে হলে লাগবে পুরনিগমের অনুমোদন। কর বকেয়া রেখে বেআইনী হোডিংয়ের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপের গ্রহণের সিদ্ধান্ত স্থির। ব্যক্তি সংস্থার হোডিংয়ে পুরনিগমের প্রতীক চিহ্ন (লোগো) না থাকলেও বেআইনি কাজের জন্য নেওয়া হবে কড়া ব্যবস্থা। জাল রুখতে শিলিগুড়ি পুরনিগমের তরফে বেসরকারি হোডিংয়ে ব্যবহার করা হতে পারে অত্যাধুনিক কিইউআর কোড।
মেয়র পারিষদ বৈঠকে শহরের পরিকাঠামো থেকে স্বাস্থ্য পরিষেবা উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত। প্রয়োজনে ভাড়ায় ভবন নিয়ে জুলাইয়ের মধ্যে ৩০টি সুস্বাস্থ্য কেন্দ্র দ্রুত চালুর বিষয়টি নিয়ে চূড়ান্ত আলোচনা মেয়র পারিষদের গোপন বৈঠকে। দীর্ঘ বাম আমল জুড়ে পরিকল্পনাহীনতার কারনে শহরের রাস্তা ঘাটে হোডিং-পোস্টারের বিজ্ঞাপনের দাপটে তিলোত্তমা শিলিগুড়ির মুখ ঢেকে যাওয়ার উপক্রম। একাধিকবার এই বিষয়ে আওয়াজ তুলেছে তৃনমূল। ক্ষমতায় আসীন হয়ে শহরে বেশ কিছু জায়গাকে হোডিং ফ্রী জোন হিসেবেও ঘোষণা করে তৃনমূল পুর বোর্ড। তবে এবারে বেআইনি হোডিংয়ের ওপর নিয়ন্ত্রণ রেখা টানতে কড়াকড়ি পদক্ষেপ নিতে চলেছে পুরনিগম। চলতি মাসিক বোর্ড বৈঠকেই পুরবোর্ড এই সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করতে চলেছে। শনিবার শিলিগুড়ি পুরনিগমের মাসিক বোর্ড বৈঠকের প্রস্তুতি স্বরূপ মেয়র পারিষদের বৈঠকে একাধিক বিষয়ে আলোকপাত করা হয়। টানা দু ঘন্টার বৈঠক শেষে ডেপুটি মেয়র রঞ্জন সরকার জানান শহরে বেআইনি হোডিংয়ে ছেয়ে গিয়েছে। মর্জি মাফিক শহর জুড়ে হোডিং, বিশালাকৃতি ব্যানার লাগিয়ে মুনাফা তুলছে এক শ্রেণীর অসাধু ব্যবসায়ীরা। প্রচুর বেআইনি হোডিংয়ের ক্ষেত্রে পুরনিগমের অনুমোদন পর্যন্ত নেই। কোনো ক্ষেত্রে আবার এক বছরের কর দিয়ে বছরের পর বছর ঝুলছে বেইআইনী হোডিং। যাতে সৌন্দয্য বিঘ্নিত হওয়ায় পাশাপাশি অনেক ক্ষেত্রে হেডিংয়ের জীর্ণ দশায় দুর্ঘটনার আশঙ্কা থেকে যাচ্ছে। এদিন রঞ্জন বাবু বলেন শহরের বিগত ১০বছরে বেইআইনী হোডিংয়ে ছেয়ে গিয়েছে। যার কোনো হিসেব নিকেশ নেই। তবে এবারে শহরের সার্ভে করে সমস্ত হোডিংগুলিকে নথিভুক্ত করে যাচাই করা হচ্ছে। কর ফাঁকি দিয়ে দিনের পর দিন যে সমস্ত বেআইনি হোডিংগুলি ঝুলছে তাদের ক্ষেত্রে নেওয়া হবে কড়া ব্যবস্থা। পুরকর্মীরা বেআইনি হোডিং নজরে এলেও অভিযান চালিয়ে সরিয়ে দেবে তা। তালিকা ধরে সমস্ত হোডিংয়ের ওপর থাকবে পুরনিগমের লোগো।
সংস্থা ও ব্যবসায়ীদের পুরনিগমের লোগো দিয়ে হোডিং লাগাতে হবে। অন্যদিকে স্বাস্থ্য বিষয়ে এদিন গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তের কথা জানান ডেপুটি মেয়র।

তিনি বলেন মুখ্যমন্ত্রী নির্দেশ মতো শিলিগুড়ি শহরে ৩০সুস্বাস্থ্য কেন্দ্র গড়ে তোলা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই ২৫টি সুস্বাস্থ্য কেন্দ্র এর জন্য জমি চিহ্নিত করা হয়েছে। রঞ্জন বাবু বলেন যেখানে জমি মিলছে না সেখানে কাল বিলম্ব না করে আপাদত সংশ্লিষ্ট এলাকায় কোনো ভবন ভাড়ায় নিয়ে জুলাই মাসেই সুস্বাস্থ্য কেন্দ্র গুলি চালু করে দেওয়া হবে। চিকিৎসক, নার্সিং কর্মী যাবতীয়টাই রাজ্যের সরকার প্রদান করবে। এই সুস্বাস্থ্য কেন্দ্র গুলির অধিকাংশই পুরনিগমের সংযুক্ত এলাকা গুলিকে গুরুত্ব দিয়ে গড়ে তোলা হচ্ছে। ভ্যাকসিন, নিয়মিত টিকাকরন, ডেঙ্গি ম্যালেরিয়া যাবতীয় পরিষেবা মিলবে এই সুস্বাস্থ্য কেন্দ্র গুলিতে। অন্যদিকে তিনিটি নদী ঘাটকে সিসি ক্যামেরায় মুড়ে ফেলা হবে। সংযুক্ত এলাকার ওয়ার্ড গুলিতে হাই মাস্ট আলোর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এই সমস্তটাই মাসিক বোর্ড বৈঠকে প্রস্তাব পেশ করে সভা কক্ষের সমর্থনের ভিত্তিতে চূড়ান্ত করা হবে।

এদিকে এদিন টক টু মেয়র অনুষ্ঠানেও উন্নয়নের ওপর নজর আরোপ করেন মেয়র গৌতম দেব। এক ব্যক্তি তেনজিং নোরগে বাসস্ট্যান্ড এলাকায় যান জট সমস্যার কথা জানান। তার উত্তরে মেয়র বলেন ওই এলাকায় একটা ফুট ওভার ব্রিজ করার পরিকল্পনা রয়েছেন। মেয়র বলেন ফুট ওভার ব্রিজের বিষয়ে পূর্ত দপ্তরের সঙ্গে আলোচনা চলছে। তবে প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে বিষয়টি।

You cannot copy content of this page