🔺🔺শিলিগুড়িতে পুলিশের গাড়িতে ভাঙচুর, পুলিশের সঙ্গে বেপরোয়া বাউন্সারদের ধস্তাধস্তির ঘটনায় গ্রেপ্তার সিভিক ভলেন্টিয়ার। শিলিগুড়িতে রোয়াব খাটানো, বাউন্সার সংগঠন চালানো ক্ষমতাশালী সিভিক ভলেন্টিয়ারকে কাঠগড়ায় তুললো শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশ। শিলিগুড়ি পুলিশ কমিশনার অখিলেশ কুমার চতুর্বেদীর সাফ মন্তব্য অভিযুক্ত যেই হোক বেআইনি কাজে যুক্ত কাউকে বরদাস্ত করা হবে না।

 

শিলিগুড়ি। শিলিগুড়িতে পুলিশের গাড়িতে ভাঙচুর, পুলিশের সঙ্গে বেপরোয়া বাউন্সারদের ধস্তাধস্তির ঘটনায় গ্রেপ্তার সিভিক ভলেন্টিয়ার। শিলিগুড়িতে রোয়াব খাটানো, বাউন্সার সংগঠন চালানো ক্ষমতাশালী সিভিক ভলেন্টিয়ারকে কাঠগড়ায় তুললো শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশ। শিলিগুড়ি পুলিশ কমিশনার অখিলেশ কুমার চতুর্বেদীর সাফ মন্তব্য অভিযুক্ত যেই হোক বেআইনি কাজে যুক্ত কাউকে বরদাস্ত করা হবে না। ধৃতের নাম উজ্জ্বল মন্ডল (৩২)।শিলিগুড়ি কমিশনারেটের পুলিশের মাল্লাগুড়ি পুলিশ লাইনে সিভিক ভলেন্টিয়ার হিসেবে জিম ইন্সট্রাক্টরের দায়িত্বে ছিল উজ্জ্বল। উজ্জ্বলের সিভিক ভলেন্টিয়ার নম্বর ৯৮৪। দিনে সিভিক ভলেন্টিয়ারের দায়িত্বে থাকলেও সন্ধ্যা গড়াতেই বাউন্সার বেতাজ বাদশা ভূমিকায় ধরা দিত সে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে ২০১৯ সালে শিলিগুড়ি সিভিক ভলেন্টিয়ার পদে যোগ দেয় এই ব্যক্তি। মাসাল ম্যান বাউন্সার প্রথমে জিম ট্রেইনার ও পরে সিভিক ভলেন্টিয়ার হয়ে ওঠে। চাকুরী সূত্রে পুলিশের উপর মহলের সঙ্গে ওঠাবসার গল্প বলেই শিলিগুড়ির বাউন্সারদের বেতাজ বাদশা হয়ে ওঠে।

কোন তারকার অনুষ্ঠানে কোনো গোষ্ঠীর বাউন্সারের কাজ মিলবে, শহরের কোন বারে কোন বাউন্সারদের দেওয়া হবে সবটাই চলতে লাগে তারই নখদর্পনে। কাজের সূত্র ধরে পুলিশের সঙ্গে ওঠা বসা, যোগাযোগকেই তুরুপের তাস হিসেবে ব্যাবহার করতো সে। ক্ষমতার আস্ফালনে বাউন্সারদের একটা গোষ্ঠি গড়ে তোলে। শিলিগুড়ি বাউন্সার সংগঠনের অন্যতম পদে রয়েছে অভিযুক্ত সিভিক ভলেন্টিয়ার।এই সিভিল ভলেন্টিয়ার জিম ট্রেইনার বাউন্সারের নির্দেশে কাজ মেলাকে কেন্দ্র করেই অশান্তি শুরু হয়। গত রবিবার দুই বাউন্সার গোষ্ঠির বিবাদকে কেন্দ্র করেই রণক্ষেত্রের রূপ নেয় সেবক রোড। প্রথমে সেবক রোডের পায়েল মোড় সংলগ্ন বাণিজ্যিক বহুতলের পানশালায় বাউন্সারদের দুই গোষ্ঠীর মধ্যে অশান্তি বাঁধে। এরপরই সে ঝামেলা ও বাউন্সারদের বেপরোয়া দাপট সেবক রোড ধরে এসে পৌঁছায় বাণিজ্যিক মার্কেট কমপ্লেক্সের সামনে। আইনশৃঙ্খলার পরিস্থিতি তৈরি হয়। বাউন্সারেরা পানশালায় ভাঙচুর চালায় এবং কর্মীদের মারধোর করে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির সামালে নামতে হয় শিলিগুড়ি ভক্তিনগর থানার বিরাট পুলিশ বাহিনীকে। আর সে সময় বেপরোয়া বাউন্সাররা হামলে পরে পুলিশের ওপর। পুলিশের সঙ্গে রীতিমতো ধস্তাধস্তি করতে লাগেন বাউন্সারেরা। বেপরোয়া বাউন্সারেদের দাপট এখানেই শেষ হয়নি, পাল্টা পুলিশের গাড়ির ওপর হামলা চালায় তারা। ভাঙচুর করা হয় পুলিশের গাড়ি। ঘটনায় সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ ধরে পুলিশের উপর ধস্তাধস্তি সরকারি সম্পত্তি ক্ষয়ক্ষতির ঘটনায় অভিযুক্ত বাউন্সারদের চিহ্নিত করে দশজনকে প্রথম দিনেই গ্রেফতার করে পুলিশ। ওই ঘটনার অন্যতম অভিযুক্ত উজ্জ্বল মন্ডল গাঁ ঢাকা দিলেও বুধবার তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। অভিযুক্তকে বৃহস্পতিবার জলপাইগুড়ি আদালতে পেশ করা হয়েছে। এ বিষয়ে পুলিশ কমিশনার জানান- কিভাবে একজন সিভিক ভলেন্টিয়ার বাউন্সার সংগঠনের সঙ্গে জড়িত ছিল সে বিষয়গুলি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এছাড়াও দপ্তরিয় যা ব্যবস্থা নেওয়ার তা গ্রহণ করা হবে। বিষয়টি উপর মহলে জানানো হবে।
তার মন্তব্য আমি থাকতে কোনো বেআইনি কাজে যুক্ত সে যেই হোক বরদাস্ত করবো না।

 

 

You cannot copy content of this page