বেলচা হাতে রাস্তায় পুলিশ! এ রাজ্যে রাস্তার খানাখন্দে জমা জল পরিষ্কারে নামছে এবার তাহলে পুলিশ! উর্দিতে লাঠি বন্ধুক ছেড়ে সোজা বেলচা ইট পাথর নিয়ে রাস্তার কাজে নামছে মহিলা পুলিশও? এ হেন কাণ্ডে হতবাক তখন পথচারী-চালকেরা। তাহলে সত্যি শুধু এটাই দেখার ছিল বাকি!

না পুরো বিষয়টি জানতেই পথচারীদের কুর্নিশ কুড়োলো শিলিগুড়ি পুলিশ।

বর্ষা মোকাবিলায় সিভিল ডিফেন্স টিমের পাশাপাশি দৃষ্টান্ত স্থাপন করে শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশ। খোদ বেলচা হাতে মহিলা পুলিশ থেকে ট্রাফিকে নিয়োজিত পুলিশ কর্মীরা রাস্তা সারাইয়ের কাজে নামেন। আসল বিষয়টা হলো জনগণের পরিষেবা অব্যাহত রাখতে বুধবার দার্জিলিং মোড় সংলগ্ন এলাকায় বিশ্ব বাংলা গ্লোবের কাছে নিজ কাঁধে এই দায়িত্ব তুলে নিয়ে মানবিকতার পরিচয় দিয়েছে শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশ।

দার্জিলিং মোড় থেকে সুকনা যাওয়ার রাস্তায় এক জায়গায়  অতিরিক্ত বৃষ্টিপাতের জেরে পিচের প্রলেপ উঠে খন্দের সৃষ্টি হয়। তাতে পথচারীদের পা এবং যানবাহনের চাকা ফেঁসে যাচ্ছিল। কার্যরত পুলিশ কর্মীদের বিষয়টি নজরে আসে। উপর মহলে জানাতেই বিকল্প ব্যবস্থার জন্য পরিকল্পনা শুরু হয়। বড় বিপত্তি এড়াতে তড়িঘড়ি তাই পুলিশ কর্মীরা জরুরী কিছু সামগ্রী নিয়ে নিজেরাই নেমে পড়েন রাস্তার ওই অংশ সারাইয়ে। সেই ছবি শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশের তরফে সামাজিক মাধ্যমে তুলে ধরা হয়।

মানবিক ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়ে পুলিশের তরফে তড়িঘড়ি  জমা জল সাফ করে সেখানে ইট পাথর দিয়ে খন্দ বুজিয়ে দেওয়া হয়। বড় দুর্ঘটনা এড়াতে এভাবেই একাধিক এলাকায় রাস্তার খানাখন্দ ভরাট করেন পুলিশকর্মীরা।

I

মমতা পুলিশের এই মানবিক রুপ কুর্ণিশ কুড়োয় শহরবাসীর।

তবে শিলিগুড়ি শহরের একাধিক জায়গাতে রাস্তা সারাই তে পুলিশকে নামতে দেখে শহরের নাগরিকদের একাংশ অবশ্য সমালোচনায় মুখর হয়ে বলছেন বর্ষার আগে রাজ্যের সরকার সমস্ত রাস্তাঘাট সময় থাকতে সারাইয়ের ব্যবস্থা করলে এ দিন দেখতে হতো না পুলিশকে। বেহাল রাস্তার কঙ্কালসার অবস্থায় প্রলেপ দিতে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী পুলিশকে নামতে হচ্ছে এ কোনো প্রশংসাযোগ্য বিষয় নয়।

You cannot copy content of this page