টিকা লাগিয়ে বহিরাগতদের নিয়ে অশান্তির ছক অব্যাহত ভোটের শেষ প্রহরে। বুথের বাইরে থেকে জয় শ্রী রাম ধ্বনি। উত্তেজনা সামলে বিশাল পুলিশ বাহিনী

 

শিলিগুড়ি। টিকা লাগিয়ে বহিরাগতদের নিয়ে অশান্তির ছক অব্যাহত ভোটের শেষ প্রহরে। বুথের বাইরে থেকে জয় শ্রী রাম ধ্বনি। একটিয়াশাল তিলেশ্বরি অধিকারি উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বুথে এসে নির্বাচনী ১৪৪ ধারার ভেতর ঢুকে পড়ার চেষ্টা করেন। ধারাবাহিকভাবে উদ্দেশ্যপ্রণীতভাবেই এই কাজ করে চলছেন তিনি। এই ভোট গ্রহণ কেন্দ্রে ১৫টি পোল বুথ ১৬০-১৭৩নম্বর বুথ রয়েছে। এদিন বিকেল পাঁচটা নাগাদ প্রায় ১০০-১৫০জন বহিরাগত দলবলকে নিয়ে এসে অশান্তির সৃষ্টির চেষ্টা করে। রীতিমতো জনপ্রতিনিধী দলবল নিয়ে বুথের ভেতরে ২০০মিটারের মধ্যে ঢুকে ১৪৪ ধারা লঙ্ঘন করে ভোটারদের প্রভাবিত করার চেষ্টা করেন। তৃনমূল কর্মীরা বাধা দিয়ে প্রতিবাদ জানালে বিধায়িকার সঙ্গে বাক বিতণ্ডতা বাঁধে। উত্তেজনার পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। কেন্দ্রীয় বাহিনীর মদতেই এই ঘটনা হয় বলে অভিযোগ তৃণমূল কর্মীদের। যদিও বিজেপি বিধায়িকা শিখা চ্যাটার্জি মন্তব্য তিনি নাকি খবর পেয়েছে এই বুথে ৪০নাম্বার ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও অনুগামীরা বুথের ভেতর ঢুকে ভোট প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে। যদিও তার এই বক্তব্যে কোনো সত্যতা মেলেনি। কারন ওই বুথের ভেতর কাউন্সিলরের দেখা মেলেনি। ভাজপা ও তৃনমূল কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উত্তেজনা
পরিস্থিতি সামালে পৌঁছয় বিরাট পুলিশ বাহিনী। অন্যদিকে এই বুথেও বাইরে ১০০-১৫০জন বহিরাগত বিজেপিও কর্মীরা ঘিরে ফেলে। জয় শ্রীরাম ধ্বনি তুলে এলাকা উত্তপ্ত করে তোলার চেষ্টা করে। পুলিশের সঙ্গে এক পর্যায়ে ধাক্কাধাক্কির পর বিধায়িকা শিখা চ্যাটার্জিকে গাড়ি এলাকা থেকে বের করে দেয়। মুন্না প্রসাদ জানান গৌতম দেব বলেন উনি যাত্রাপালা করে চলছেন। ওনার চিতপুরে গিয়ে যাত্রাপালা করা উচিত।তাতেই বোঝা যাচ্ছে বিজেপি ভয়ঙ্কর খারাপ ফল হতে চলেছে। এ ধরনের অন্যায় অনৈতিকতা মেনে নেওয়া যায় না।

You cannot copy content of this page